‘মেসি-রোনালদোর বিদায় বিশ্বকাপের লজ্জা!’

0
221

একই রাতে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। দুই সুপারস্টারের এমন বিদায়ে বিশ্বের কোটি কোটি ভক্তের মতো হতাশ হয়েছেন ইংলিশ ফুটবল তারকা গ্যারি নেভিলে। মোট ১০ বার বর্ষসেরা এই দুজনের বিদায়কে রাশিয়া বিশ্বকাপের ‘লজ্জা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন তিনি! দর্শকদের কাছে সবচেয়ে বেশী জনপ্রিয় তারকা জুটিকে আগামীতে সর্ববৃহৎ আসরে দেখা যাবে কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তিনি।

গতকাল শনিবার রাতে কাজানে নকআউট পর্বে ফ্রান্সের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে মেসির আর্জেন্টিনা। দলের এই পরাজয়ে তিনি কোন ভূমিকা রাখতে পারেননি। আদায় করতে পারেননি কোন গোল। ৪-৩ গোলের পরাজয় নিয়ে এই বার্সেলোনা তারকা বিদায় নিয়েছেন বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে।

একই রাতে সোচিতে অনুষ্ঠিত নক আউট পর্বের আরেক ম্যাচে উরুগুয়ের কাছে ২-১ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে মেসির শ্রেষ্ঠত্বের প্রতিদ্বন্দ্বি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর দল পর্তুগাল। যাদুকরী ফুটবলার রোনালদোর অনুপ্রেরণায় অনুপ্রাণীত দলটি শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপের অগ্রযাত্রা আর ধরে রাখতে পারেনি।

আইটিভি স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে নেভিলে বলেন, ‘গোটা দেশের ওজন তাদের কাঁধের উপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছিল। এবার হয়তো তারা অবসর নেবেন। কিন্তু মেসি ও রোনালদো বিহীন বিশ্বকাপ খুবই লজ্জার। কারণ, পরের বিশ্বকাপে হয়তো তাদের মতো অসাধারণ খেলোয়াড় আর দেখা যাবে না…।’

নেভিলে মনে করেন পরিস্থিতির কারণে মেসি-রোনালদোর অবসর নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া কঠিন। তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ২০২২ বিশ্বকাপে মেসি ও রোনালদোর বয়স যথাক্রমে ৩৫ ও ৩৭ বছর হয়ে যাবে। যদি তারা বিশ্বকাপে খেলেও, তবুও কি এখনকার মতো ভয়ংকর থাকবে? মেসির দৃষ্টিকোণ থেকে হয়তো তিনি লড়াইয়ে থাকতে পারেন। কিন্তু রোনালদো একেবাইরেই বিদায় নিতে পারে বলে মনে হচ্ছে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন
আপনার নাম প্রদান করুন